কেন্দ্রের সঙ্গে কথা বলতে ‘তৈরি’ হোয়াটসঅ্যাপ

0
174
কেন্দ্রের সঙ্গে কথা বলতে 'তৈরি' হোয়াটসঅ্যাপ
কেন্দ্রের সঙ্গে কথা বলতে 'তৈরি' হোয়াটসঅ্যাপ

কেন্দ্রের সঙ্গে কথা বলতে ‘তৈরি’ হোয়াটসঅ্যাপ

এই সময় : হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ ফেসবুক মালিকানাধীন সংস্থার সঙ্গে তাঁদের প্ল্যাটফর্মে থাকা গ্রাহকতথ্য ভাগাভাগি করার ফরমান জারি করার পর আসমুদ্র হিমাচলে তার বিরূপ প্রতিক্রিয়া হয়েছে। সাঁই-সাঁই করে রোজ বাড়ছে বিকল্প সিগন্যাল-টেলিগ্রামের মতো বিকল্প প্ল্যাটফর্মে ডাউনলোডের সংখ্যা। কার্যতই ঘাবড়ে যাওয়া কর্তৃপক্ষের তরফে হোয়াটসঅ্যাপ সিইও উইল ক্যাথকার্ট এ বার জানিয়ে দিলেন, তাঁদের প্ল্যাটফর্মে থাকা গ্রাহকতথ্যের গোপনীয়তা রক্ষা সম্পর্কে ভারত সরকারের তরফে যে কোনও রকম প্রশ্নের উত্তর দিতে তৈরি তাঁরা। একই সঙ্গে তাঁর দাবি, হোয়াটসঅ্যাপে গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য যে আগের মতোই সুরক্ষিত এবং এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশনের আওতাতেই থাকছে, সেই বার্তা আরও বেশি করে গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দিতে, তাঁদের আস্থা জিতে হোয়াটসঅ্যাপে তাঁদের জুড়ে রাখতে আরও ব্যাপক হারে প্রচার করবেন তাঁরা। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক কিন্তু বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত এক শীর্ষ কেন্দ্রীয় সরকারি আধিকারিকের দাবি, পুরো বিষয়ের উপর নজর রেখে আলোচনা চালাচ্ছে কেন্দ্র। শীঘ্রই হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষকে ডাকা হতে পারে তাঁদের নতুন টামর্স অফ সার্ভিসে ভারতীয় গ্রাহকদের ব্যক্তিগত গোপন তথ্য সম্পর্কে কোন অবস্থান নেওয়া হয়েছে, তা স্পষ্ট করার জন্য।

তবে সামনে এক রকম কথা বললেও ভারতে ডেটা-সুরক্ষা সম্পর্কিত কোনও আইন না থাকার জন্যই যে এইসব তথ্য আদানপ্রদান জনিত প্রস্তাব আনা সম্ভব হচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপের তরফে, তা এ দিন ফের বোঝা গিয়েছে সংস্থার আইরিশ শাখার মুখপাত্রের কথায়। ভারতের তর্ক-বিতর্কের কথা সাগরপাড়ি দিয়ে সেখানেও পৌঁছে যাওয়ার পর তা নিয়ে আলাপ-আলোচনা শুরুতেই থামিয়ে দিয়ে সংস্থার ডিরেক্টর ফর পলিসি (ইউরোপ, মিডল ইস্ট এবং আফ্রিকা) নিমাহ স্যুইনি বৃহস্পতিবার স্পষ্টই জানিয়েছেন, ইউরোপে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রাহকদের তথ্য ‘দ্য জেনারেল ডেটা প্রোটেকশন রেগুলেশন’-এর আওতায় থাকার দরুণ ইউরোপে কোনও গ্রাহকের তথ্য দ্বিতীয় কোনও পক্ষের সঙ্গে ভাগ করার কোনও প্রশ্নই উঠছে না। সেখানেও নতুন টার্মস অফ সার্ভিস আনা হতে চলেছে। তবে তাতে ভারতের মতো কোনও গ্রাহক তথ্য ফেসবুকের সঙ্গে ভাগ করার কোনও প্রস্তাবনা থাকবে না।

এর আগে ২০১৭ সালে ফেসবুকের বিরুদ্ধে ১১০ মিলিয়ন ডলার জরিমানা ধার্য করেছিল ইউরোপিয়ান কমিশন, এই আইন ভাঙার জন্য। ফেসবুকের অপরাধ ছিল, তারা জানায়নি, হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর ফোন নম্বর ফেসবুকের কাছেও চলে যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here