হোয়াটস্যাপ-কে কড়া ভাষায় চিঠি ভারতের

0
171
প্রাইভেসি পলিসি প্রত্যাহার করতে হবে, হোয়াটস্যাপ-কে কড়া ভাষায় চিঠি ভারতের
প্রাইভেসি পলিসি প্রত্যাহার করতে হবে, হোয়াটস্যাপ-কে কড়া ভাষায় চিঠি ভারতের

হোয়াটস্যাপ-কে কড়া ভাষায় চিঠি ভারতের

thetechnews24.info

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতে হোয়াটস্যাপ-এর বিড়ম্বনা যেন আরও বাড়ছে! ফেইসবুক-এর মালিকানাধীন সংস্থা হোয়াটস্যাপ-এর গ্লোবাল সিইও Will Cathcart-কে কড়া ভাষায় চিঠি লিখল ভারত সরকার। সেই চিঠিতে হোয়াটস্যাপ-এর প্রাইভেসি পলিসিতে যে পরিবর্তন নিয়ে আসার কথা হচ্ছে, তা প্রত্যাহারের নির্দেশ দিল কেন্দ্র। পাশাপাশিই হোয়াটস্যাপ-এ গ্রাহকদের তথ্য সুরক্ষার বিষয় নিয়ে উদ্বেগও প্রকাশ করল কেন্দ্রীয় সরকার।

হোয়াটস্যাপ-কে কড়া ভাষায় চিঠি ভারতের

চিঠির প্রথমেই কেন্দ্রের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের তরফে লেখা হয়েছে, ভারতে যেন কোনও মতেই হোয়াটসঅ্যাপ-এর প্রাইভেসি পলিসি কার্যকর না হয়। আর এই প্রসঙ্গেই হোয়াটসঅ্যাপ-এ গ্রাহকদের তথ্য সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে কেন্দ্র। চিঠিতে পরিষ্কার ভাবে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ইউরোপ ও ভারতের ইউজারদের জন্য আলাদা-আলাদা প্রাইভেসি পলিসি ব্যবহার করা হচ্ছে। কোম্পানির এহেন আচরণকে সরাসরি ‘বিভেদমূলক’ হিসেবেই চিঠিতে লেখা হয়েছে কেন্দ্রের তরফে।

ভারতে এই মুহূর্তে হোয়াটসঅ্যাপ-এর একটা বিরাট সংখ্যক ইউজার রয়েছে, যে সংখ্যাটা ৪০০ মিলিয়নও ছাড়িয়ে গিয়েছে। কেন্দ্র হোয়াটসঅ্যাপ-কে লেখা চিঠিতে পরিষ্কার জানাচ্ছে, ভারতে তাঁদের বাজার বিরাট, অথচ সেই ভারতীয়দেরই সম্মান দিচ্ছে না এই ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং প্ল্যাটফর্ম। পাশাপাশিই কেন্দ্রের হুঁশিয়ারি, ভারতের হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা কোনও ভাবে বিঘ্নিত হলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে যে, হোয়াটস্যাপ-এর এই নয়া নীতি অনুযায়ী ইউজারের চ্যাটের মেটাডেটা যদি ফেসবুক-এর মালিকানাধীন অন্যান্য সংস্থাগুলির বিজনেস অ্যাকাউন্টের সঙ্গে শেয়ার করা হয়, তাহলে ফেসবুক-গ্রুপ ইউজারদের জন্য তথ্যের লোভনীয় ভাণ্ডার তৈরি হবে, যা ইউজারদের সুরক্ষার দিক থেকে বড় ঝুঁকির কারণ হয়ে দেখা দিতে পারে। আর এখানেই সবথেকে চিন্তার বিষয় বলে চিঠিতে উল্লেখ করেছে কেন্দ্র।

চিঠিতে হোয়াটসঅ্যাপ-কে কেন্দ্রের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রক আরও লিখছে যে, ভারতের সংসদ ইতিমধ্যেই ব্যক্তি তথ্য সুরক্ষা বিল নিয়ে আসার পরিকল্পনা করছে। সংসদের উভয় কক্ষের যৌথ নির্বাচন কমিটির অগ্রিম পর্যায়ে বিলটি রয়েছে বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে। তথ্য প্রক্রিয়াকরণের ক্ষেত্রে ‘উদ্দেশ্য সীমাবদ্ধতার’ দৃঢ় নীতি নিয়ে চলছে হোয়াটসঅ্যাপ। এহেন পরিস্থিতিতে প্রাইভেসি পলিসিতে এমনতর বদল কেন আনছে হোয়াটসঅ্যাপ
, সেই প্রশ্নও চিঠিতে করেছে কেন্দ্র। সব মিলিয়ে গোপনীয়তা এবং তথ্য সুরক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় খুঁটিনাটি জানতে মোট ১৪ টি প্রশ্নের একটি তালিকা হোয়াটসঅ্যাপ-কে পাঠিয়েছে কেন্দ্র।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here